অনুপাত

বিষয়াবলী

অনুপাত : অনুপাত আর্থিক বিবরণীর উপাদানগুলোর (সম্পত্তি, দায় ও মালিকানা সত্ত্ব) মধ্যে সম্পর্ক প্রকাশ করে।

 

অনুপাত বিশ্লেষণ কে যেসব রূপে প্রকাশ করা যেতে পারে

শতকরা রূপে। যেমন- ২৫%, ১০%

আনুপাত রূপে। যেমন- ২:৩, ৪:৫

হার/বার। যেমন- ২ বার, ৫ বার

 

শ্রেণীবিভাগ
উদ্দেশ্য অনুসারে অনুপাতকে ৪ টি শ্রেণীতে ভাগ করা যায়।

 

তারল্য অনুপাত :

 

চলতি অনুপাত

ত্বরিত অনুপাত

কার্যকরি মূলধন অনুপাত

উপার্জন ক্ষমতা অনুপাত :

মোট লাভ অনুপাত

নীট লাভ অনুপাত

শেয়ার প্রতি আয় (Earning per Share-EPS)

মূলধন কাঠামো অনুপাত

দায়-মালিকানা অনুপাত

দায়-মোট সম্পত্তি অনুপাত

 

ব্যবসায়িক কার্যকলাপ সম্পর্কিত অনুপাত

মজুদ আবর্তন অনুপাত

দেনাদার আবর্তন আনুপাত

 

অনুপাত নির্ণয়

 

 

চলতি সম্পত্তি : যে সব সম্পত্তিকে এক হিসাবকালের মধ্যে নগদ টাকায় রূপান্তর করা যায়, তাদের চলতি সম্পত্তি বলে। যেমন- নগদ, ব্যাংকে জমা, স্বল্পমেয়াদী বিনিয়োগ, প্রাপ্য হিসাবসমূহ, বিবিধ দেনাদার, প্রাপ্য নোট, অগ্রপ্রদত্ত ব্যয়, মজুদ পণ্য।

 

চলতি দায় : যে সব দায়কে এক হিসাবকালের মধ্যে পরিশোধ করতে হয়, তাদেরকে চলতি দায় বলে। যেমন- প্রদেয় হিসাবসমূহ, স্বল্পমেয়াদী ঋণ, অনুপার্জিত আয়, প্রদেয় লভ্যাংশ, প্রদেয় নোট, দীর্ঘমেয়াদী ঋণের চলতি অংশ।

 

 

ত্বরিত সম্পত্তি : যে সব চলতি সম্পত্তিকে স্বল্প সময়ের মধ্যে শূণ্য ঝুঁকিতে প্রায় সমপরিমাণ নগদ টাকায় রূপান্তর করা যায়, তাদেরকে ত্বরিত সম্পত্তি বলে। যেমন- নগদ টাকা, ব্যাংকে জমা, দেনাদার।

 

 

ত্বরিত সম্পত্তি = চলতি সম্পত্তি – মজুদ পণ্য

 

 

কার্যকরি মূলধন :

 

 

কার্যকরি মূলধন = চলতি সম্পত্তি - চলতি দায়

 

 

 

 

কর পরবর্তী নীট লাভ = নীট লাভ – কর

 

 

মালিকানা স্বত্ত্ব : ব্যবসায়ের মোট সম্পত্তির উপরে মালিকের দাবীকে মালিকানা স্বত্ত্ব বা মূলধন বলে।

 

 

মালিকানা স্বত্ত্ব = সাধারণ শেয়ার + অগ্রাধিকার শেয়ার + জমাকৃত মুনাফা + মূলধন সঞ্চিতি + সাধারণ সঞ্চিতি + অন্যান্য সঞ্চিতি ও তহবিল

 

 

 

 

বিক্রিত পণ্যের ব্যয় = নীট বিক্রয় – মোট

 

 

 

 

নীট ধারে বিক্রয় = নীট বিক্রয় – নগদ

 

 

 

গড় প্রাপ্য হিসাব = (প্রারম্ভিক দেনাদার + সমাপনী দেনাদার) / ২

 

 

কোন অনুপাত কি বোঝায়?

 

চলতি অনুপাত : প্রতিষ্ঠানের স্বল্পমেয়াদী দায় পরিশোধের ক্ষমতা নির্দেশ করে।

 

ত্বরিত অনুপাত : প্রতিষ্ঠানের তাৎক্ষণিক দায় পরিশোধের দায় পরিশোধ ক্ষমতা নির্দেশ করে।

 

কার্যকরি মূলধন অনুপাত :

 

মোট লাভ অনুপাত : প্রতি টাকা বিক্রয়ের বিপরীতে মোট লাভের পরিমাণ নির্দেশ করে।

 

নীট লাভ অনুপাত : প্রতি টাকা বিক্রয়ের বিপরীতে নীট লাভের পরিমাণ নির্দেশ করে।

 

শেয়ার প্রতি আয় : প্রতি শেয়ারের বিপরীতে নীট আয়ের পরিমাণ নির্দেশ করে।

 

দায়-মালিকানা অনুপাত : বহিঃস্থ ও অভ্যন্তরীণ দাবীর পরিমাণ নির্দেশ করে।

 

দায়-মোট সম্পত্তি অনুপাত : প্রতি টাকা সম্পত্তির বিপরীতে দায় নির্দেশ করে।

 

মজুদ আবর্তন অনুপাত : মজুদ গড়ে কত দিন পরপর বিক্রয় হয় তা নির্দেশ করে।

 

দেনাদার আবর্তন আনুপাত : একটি হিসাবকালে দেনাদারের থেকে অর্থ প্রাপ্তির গড় সময় নির্দেশ করে।

 

 

 

 

 

 

Twitter icon
Facebook icon
Google icon
StumbleUpon icon
Del.icio.us icon
Digg icon
LinkedIn icon
MySpace icon
Newsvine icon
Pinterest icon
Reddit icon
Technorati icon
Yahoo! icon
e-mail icon

edpdbd-তে যতো নতুন

 


ঢাবি ক ইউনিট প্রশ্ন ২০১৩-২০১৪ এর সমাধান


ঢাবিইউনিট প্রশ্ন ২০১৩-২০১৪ এর সমাধান

ঢাবি 'ঘ' ইউনিট প্রশ্ন ২০১৩-২০১৪ এর সমাধান

ঢাবি খ ইউনিট প্রশ্ন ২০১৩-২০১৪ এর সমাধান


ইন্জিনিয়ারিং ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৪

ইন্জিনিয়ারিং ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৩

ইন্জিনিয়ারিং ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ২

ইন্জিনিয়ারিং ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ১


বাণিজ্য শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ১


বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি মডেল টেস্ট - ১

বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৮

বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ -

বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৬

বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৫

বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৪

বিজ্ঞান শাখা ভর্তি প্রস্তুতি কুইজ - ৩


মেডিকেল ভর্তি পূর্ণাঙ্গ মডেল টেস্ট- ৩

মেডিকেল ভর্তি পূর্ণাঙ্গ মডেল টেস্ট- ২

মেডিকেল ভর্তি পূর্ণাঙ্গ মডেল টেস্ট- ১


প্রতিদিনের বিসিএস (BCS) কুইজ - ৪৩

প্রতিদিনের বিসিএস (BCS) কুইজ - ৪২

প্রতিদিনের বিসিএস (BCS) কুইজ - ৪১



ঢাবি 'গ' ইউনিট প্রশ্ন ২০১২-২০১৩ এর সমাধান